মাত্র ৫ মিনিটে ঘাড়ের কালো দাগ দূর করুন!

অনেকেরই দেখা যায়, চেহারার তুলনায় ঘাড় অনেক কালো থাকে। ঘাড় ফর্সা করার জন্য অনেকে নিয়মিত পার্লারে যান। কিন্তু কিছু দিন পর আবার ঠিকই ঘাড় কালো হয়ে যায়। তাই জে’নে নিন মাত্র ৫ মিনিটে যেভাবে গলার কালো দাগ দূ’র ক’রতে পারবেন-

উপাদান: কাঁচা দুধ, চন্দন, বেসন, লেবুর রস।

প্রথমে লাগবে কাঁচা দুধ। কাঁচা দুধে প্রচুর পরিমানে ল্যাকটিক এসিড থাকে। যা আপনার শ’রীরের যেকোনো অংশ থেকে কালো দাগ দূ’র ক’রতে সহায়তা করে। এই দুধে এমন কিছু উপাদান থাকে, যা আপনার কালো দাগ দূ’র ক’রতে এবং ডেড সেল দূ’র ক’রতে সাহায্য করে।

আপনি ২ চা চামচের মত খাটি দুধ নিয়ে নিবেন। এর মধ্যে কিন্তু গুড়া দুধ নিলে হবে না। এর মধ্যে আপনি আর একটি উপাদান নিবেন। তা হল চন্দন কাঠের গুড়া।

আপনি যদি কাঁচা দুধ ও চন্দন কাঠের গুড়ো আপনার শ’রীরে লা’গিয়ে রাখেন। তবে কিন্তু এ দুইটি উপাদান আপনার শ’রীরের যেকোনো কালো দাগ শুষে নিবে। এ উপাদান গুলো যখন আপনার ত্বকের কালো দাগ শুষে নিবে, তখন আপনার ত্বক উজ্জ্বল ও সাদায় পরিনত হবে।

তবে এর কা’র্যকারিতা বাড়ানোর জন্য আরো একটি উপাদান নিতে হবে। বাজারে ত্বকের কালো দাগ দূ’র করার অনেক প্যাক পাওয়া যায়। ওই প্যাকেও কিন্তু কাঁচা দুধ ও চন্দনের গুড়া থাকে। এগুলো শ’রীরে, বগলে বা যে কোনো কালো দাগের ওপর লা’গালে খুব ভালো কাজ করে।

কাঁচা দুধের মধ্যে হাফ চা চামচের মত চন্দনের গুড়া নিয়ে নিবেন। তারপর আপনি বেসন বা চালের গুড়া যেকোনো একটি নিয়ে নিবেন। বেসনে এমন কিছু উপাদান আছে, যা আপনার কালো দাগ গুলো নরম করে দেয়। আপনার শ’রীরে ঘামের কারণে যে কালো দাগগুলো হবে তা আপনি বেসন দিয়ে দূ’র ক’রতে পারবেন।

এছা’ড়াও আপনি সব সময় চেষ্টা করবেন যেন আপনার গলায় ঘাম জমে না যায়। ঘাম জমলে সেখানে কালো দাগ প’ড়ে। আপনি ঘেমে গেলে পরি’ষ্কার পানি দিয়ে আপনার গলা ধু’য়ে নিবেন। বেশি সময় গলায় ঘাম জ’মে থাকতে দিবেন না।

আপনি দেড় চামচের মত বেসনের গুড়া নিয়ে নিবেন। এর মধ্যে আরো নিবেন ভিটামিন সি বা সাই’ট্রিক এ’সিড দ্বা’রা পরিপূ’র্ন লেবু। এক চা চামচের মত লেবুর রস নিয়ে নিবেন। খেয়াল রাখবেন লেবুর রস যেন বেশি না হয়। বেশি হলে উপাদানগুলো যখন আপনি ঘসে ব্যবহার করবেন তখন জ্বা’লা পোড়া ক’রতে পারে।

এবার সব উপাদানগুলো এক সাথে মি’শিয়ে পেস্টের মত করে নিবেন। এ পেস্টটি আপনি যেকোনো এয়ার টাইট কন্টিনারে রেখে ব্যবহার ক’রতে পারবেন। তবে তিন দিনের বেশি রাখা ঠিক হবে না। তাই প্যাকটি ব্যবহার কারার আগে বা’নিয়ে নিলে ভালো হবে।

এ প্যাকটি গলায় ব্যবহার করার পূ’র্বে আপনি গলা ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালো ভাবে পরি’ষ্কার করে নিবেন। যাতে সেখানে ধূলা-বালি, ময়লা জমে না থাকে। তারপর আপনি ৩ আঙ্গুলে প্যাকটি লা’গিয়ে নিন এবং আপনার গলায় ভালো ভাবে ম্যাসাজ করুন। এমন ভাবে ম্যাসাজ ক’রবেন, যাতে আপনার গলার প্রতিটা লোম কূ’পের গো’ড়ায় পেস্ট পৌছে যায়।

আপনি এ পেস্টটি ৫ মিনিট আপনার গলায় লা’গিয়ে রাখবেন। ৫ মিনিট পর দেখবেন প্যাকটি একে বারে শু’কিয়ে গেছে। শু’কিয়ে গেলে প্যাকটি টা’নটা’ন হয়ে যাবে। এ ভাবে যদি আপনি প্রত্যেক দিন ব্যবহার করেন তবে আপনার গলার কালো দাগ দূ’র হবে।

আপনি যদি প্যাকটি প্রতিদিন দুপুর বেলা গোসলের পূ’র্বে ব্যবহার করেন তবে ভালো ফল পাবেন। আপনি চাইলে প্যাকটি রাতেও ব্যবহার ক’রতে পারেন। এ ক্ষেত্রে ঘুমানোর আগে যেকোনো ময়শ্চারাইজার লা’গিয়ে ঘুমাবেন। এভাবে যদি আপনি ১৫ থেকে ২০ দিন পেস্টটি ব্যবহার করেন, তবে আপনার গলা বা ঘাড়ের কালো দাগ দূ’র হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *