মি’ল’নের সময় মে’য়ে’দের ক’য়’বার বী’র্য’পা’ত হওয়া দর’কার? ছে’লে’দে’র জা’না উ’চিৎ…

হ’স্তমৈ’থু‌ন বা স’’ঙ্গমের শেষে বী’র্যপাত ঘটার পর প্র’স্রাব করতে গেলে অসু’বিধা হচ্ছে,প্র’স্রাব ‘হতে চাইছে না, অথবা পু’রুষা’’ঙ্গে জ্বা’’লা অনুভূ’ত হচ্ছে।। তাঁদের মনে প্রশ্ন জেগেছে, বি’ষয়টা কি স্বাভাবিক?ডাক্তারেরা জানাচ্ছেন, বী’র্যপাত হওয়ার পরে প্র’স্রাবে অ’সুবিধা অনুভব করা অত্যন্ত স্বাভাবিক। আসলে

যৌ’’নউ’ত্তেজনার সময়ে পু’রুষ শরীরের প্র’স্টেট গ্রন্থিটি স্ফী’ত হয়ে ওঠে।এই প্র’স্টেটের অবস্থান অ’ণ্ডকোষ ও পা’য়ুর মাঝামাঝি অংশে। বী’র্যকে ঠিক পথে চালিত করা এই গ্রন্থির কাজ। বী’র্যপাতের পূর্বে এই অংশে যে সং’কোচন-প্র’সারণ ঘটে তার ফলেই প্র’স্টেটটি ফুলে যায়।এই স্ফীতির ফলে প্র’স্রাব মূ’ত্রথলি থেকে বাধাহীন ভাবে নি’র্গত ‘হতে পারে না। সেই কারণে অ’সুবিধা ঘটে প্র’স্রাবে।অনেক পু’রুষই লক্ষ করেছেন, হ’স্তমৈ’থু‌ন বা স’ঙ্গমের শেষে বী’র্যপা’ত ঘটার পর প্র’স্রাব করতে গেলে অসুবিধা হচ্ছে, প্র’স্রাব ‘হতে চাইছে না, অথবা পু’রুষা’’ঙ্গেএই স্ফীতির ফলে প্র’স্রাব মূ’ত্রথলি থেকে বাধাহীন ভাবে নি’র্গত ‘হতে পারে না। সেই কারণে

অ’সুবিধা ঘটে প্র’স্রাবে।অনেক পু’রুষই লক্ষ করেছেন, হ’স্তমৈ’থু‌ন বা স’ঙ্গমের শেষে বী’র্যপা’ত ঘটার পর প্র’স্রাব করতে গেলে অসুবিধা হচ্ছে, প্র’স্রাব ‘হতে চাইছে না, অথবা পু’রুষা’’ঙ্গেবী’র্যপা’তের পূর্বে এই অংশে যে সং’কোচন-প্র’সারণ ঘটে তার ফলেই প্র’স্টেটটি ফুলেযায়। এই স্ফী’তির ফলে প্র’স্রাব মূ’ত্রথলি থেকে বাধাহীন ভাবে নি’র্গত ‘হতে পারে না। সে কারণে অসু’বিধা ঘটে প্রস্রাবে।আসলে যৌ’’ন উ’ত্তেজনার সময়ে পু’রুষ শরীরের প্র’স্টেট গ্রন্থিটি স্ফী’ত হয়ে ওঠে।এই প্র’স্টেটের অবস্থান অ’ণ্ডকোষ ও পা’য়ুর মাঝামাঝি অংশে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *