পরিমণীকে নিয়ে এইমাত্র ফেসবুকে যে পোস্ট দিলেন নাছির ইউ মাহমুদ

দেশ-দেশান্তর পাঠক দের পোস্টটি হুবুহ তুলে ধরা হলঃপ্রিয় বন্ধুরা, সন্প্রতি আমাকে নিয়ে প্রচারিত একটি মি’থ্যা ঘটনা নিয়ে পরিমনি কর্তৃক যে অপ-প্র’চার করা হয়েছে তা আপনারা ইতিমধ্যেই অবগত হয়েছেন।

আপনাদের সদয় অবগতির জন্য সেদিন আসলে কি ঘটেছিল তা আমি বলতে চাই। আমি ঢাকা বোট ক্লা’বের কার্যকরি পরিষদের একজন সদস্য হিসেবে ক্লা’বের ডি’সিপ্লি’ন,মেন’টেইনেন্স,কাল’চারাল এফে’য়ার্স ও

এন্টারটেইনমেন্টের দায়িত্বে নিয়োজিত।সেদিন রাত আনুমানিক ১২টায় বোট ক্লা’বেরই একজন সদস্যের সাথে ৩ জন অতিথি ক্লাবের বারে প্রবেশ করেন। আমি তখন অন্য টেবিলে অন্য সদস্যদের সাথে বসে ছিলাম।আমি দুর থেকে লক্ষ করছিলাম তারা ম’দ্য’প অবস্হা’য়ই ক্লা’বে প্রবেশ করেন।এ অবস্হায় তারা আমাদের পাশের একটি টেবিলে বসেন এবং ওয়েটারদের ড্রি’ন্কসের বো’তল দিতে বলেন।ওয়েটাররা ১ বো’তল ড্রি’ন্ক’স টেবিলে সা’র্ভ করেন এবং তা অতি দ্রুত তারা শেষ করে ফেলেন এবং আরো ১ বো’তল ড্রি’ন্কস টেবিলে আনান এবং সেই বোতলের অ’র্ধেকেরও বেশি শেষ করে ফেলেন।

এসময় নিয়ম বহি’র্ভুত ভাবে পরিমনি(যার নাম আমি পরে জেনেছি)একটি দামি ৩ লিটারের “ব্লুলে’বেল”এর বো’তল বা’রের সেলফ হতে নিজ হাতে তুলে নিয়ে টেবিলে আসেন এবং তার সাথে নিতে চান।এসময় ওয়েটাররা তা নিতে বা’ধা প্রদান করলে পরিমনি ক্ষি’প্ত হন এবং ওয়েটারদের সাথে কথা কা’টা কা’টি ও অক’থ্য ভাষায় গা’লিগা’লাজ করতে থাকেন এবং একপর্যায়ে টেবিলে র’ক্ষি’ত প্লে’ট গ্লা’স অনবরত ছু’ড়ে ভা’ঙতে থাকেন। যেহেতু আমি ক্লা’বের ডি’সিপ্লিনারি ই’নচার্জ সেহেতু বিষয়টির ব্যাপারে ওয়েটাররা আমার সাহায্য চায়,

তখন আমি পরিমনিদের টেবিলের সামনে দাঁ’ড়িয়ে বলি এই ড্রি’ন্ক’সের বো’তল বিক্রি যোগ্য নয়।ওই সময় পরিমনি আমাকে তু’ই-তা’কারি করে অকথ্য গা’লিগা’লাজ শুরু করেন এবং টেবিলে র’ক্ষিত প্লে’ট,গ্লা’স ছু’ড়ে মা’র’তে থাকেন।আমি তাকে বার বার অনুরোধ করি যাতে তিনি এসব থেকে নিভৃ’ত হন।কিন্তু পরিমনি তা ক’র্নপাত না করে তিনি আমাকে লক্ষ করে গ্লা’স ছু’ড়তে থাকেন এবং একসময় একটি গ্লা’স আমার ঘা’ড়ে লাগে।পরে আরো গ্লা’স ছু’ড়তে চেষ্টা’ করলে আমি তাকে শা’ন্ত হতে বলি।সেই মু’হুর্তে তার সাথে আগত জিমি(পরে নাম জেনেছি)আমার উপর চ’ড়াও হয়।এ অবস্হায় ক্লা’বের বাইরে দায়িত্বরত সিকি”উরিটি স্টাফদের ডাকি।

কিছুক্ষণ পরেই ক্লাবের সিকি’উরি’টিগন উপস্থিত হন এবং বলি তাদের ক্লা’ব থেকে বের করে দাও,এ কথা বলে আমি ক্লা’ব ত্যা’গ করি। ঘটনার ৪/৫ দিন পর পরিমনি একটি ফেইসবুক স্ট্যাটাস দেন এবং এর কিছুক্ষণ পর তিনি একটি সংবাদ সন্মেলন করেন।সেখানে আমাকে নিয়ে তার এহেন মি’থ্যাচা’রে আমি হ’তভ’ম্ব হয়ে পরি। প্রিয় বন্ধুরা, ইতিমধ্যেই সন্মানিত সাংবাদিক ভাইয়দের এবং ইলেকট্রনিক সংবাদ মাধ্যম ও বিভিন্ন সোস্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত ভিডিও ফুটেজ ও প্রচারিত সংবাদের মাধ্যমে আপনারা ঘটনার চিত্র নিশ্চয়ই দেখেছেন এবং সত্যিকারের ঘটনাটি অনুধাবন করতে পেরেছেন।

আমি সাংবাদিক ভাইদের প্রতি এ জন্য কৃতজ্ঞ। দেশের আ’ইন শৃ’ঙ্খলা বা’হিনী’ ও মহামা’ন্য আদা’ল’তের প্রতি আমার পুর্ন আ’স্হা ও বিশ্বাস রয়েছে।আমার বিশ্বাস আমি ন্যায়’ বিচার পাবো। পরিশেষে বলতে চাই, এহেন নাম সর্ব’স্ব অভিনেত্রীর সাঁ’জা’নো নাটকে আমার মতো একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যাক্তির সারা জীবনের অর্জিত সম্মান যেভাবে ধু’লি’ষ্যাৎ করা হয়েছে তা যেনো আর কারো জীবনে না ঘটে। সবাই ভালো ও সুস্থ থাকবেন। ধন্যবাদান্তে, নাছির ইউ মাহমুদ। ০৪/০৭/২০২১ইং

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *