বাস’র রাতে স্ত্রী’র সাথে ১০ টি কাজ করতেই হবে!

বাসর রাত মুমিন জীবনের অন্যতম রাত। যারা প’রকীয়া ক’রে, লিভ টুগেদার ক’রে, তারা এ রাতের মর’্ম বুঝবে না। যারা বেশ্যা বা বহুগামিতা তাদের কাছে এ রাত বাতুলতা মাত্র। আম’রা এ পর্বে বাসর রাতে অবশ্য পা’লনীয় কিছু টিপ্স নিয়ে আলোচনা করব।

০১. গো’লাপ ফুল দিয়ে দুজন দুজনাকে বরণ ক’রে নিতে হবে। ০২. উভ’য়ই মহান আল্লাহকে যে ভালবাসবেন তা পরি’ষ্কার ভাবে দুজনা বোঝা পড়া করবেন।যারা বেশ্যা বা বহুগামিতা তাদের কাছে এ রাত বাতুলতা মাত্র। আম’রা এ পর্বে বাসর রাতে অবশ্য পা’লনীয় কিছু টিপ্স নিয়ে আলোচনা করব।

০৩. হানিমুনে কোথায় যাব’েন তা বাসর রাতেই ঠিক করবেন, সে ক্ষেত্রে স্বা’মী স্ত্রী’কে এটা ঠিক ক’রতে হবে যে, সবচেয়ে পৃথিবীর মূ’ল্যবান যায়গা মক্কা ম’দীনায় যাওয়া এবং ওম’রা ক’রার প’রিকল্পনা ক’রা। ০৪. ছোট খাট ভু’লের জন্য কাউকে তিরষ্কার না ক’রা। কাউকে ছোট না ক’রা। ০৫. কোন পক্ষের আত্নীয় স্বজনকে ছোট না ক’রা,

গালি না দেওয়া, অ’পমান না ক’রা। ০৬. জীবনের প্রথম ভালবাসার রাত, তাই ভালবাসা অক্ষুন্ন রাখা। ০৭. দুজনাতে একটু খোশ গল্প ক’রা, জীবন থেকে কোন গল্প বলা। ০৮. ভবি’ষ্যত জেনারেশনের ব্যাপারে আলাপ সেরে নেওয়া। তবে বেশী দূ’র অগ্রসর না হওয়াই ভাল। ০৯. মোহরানা যদি বাকি থাকে সেটা দেওয়ার প্র’তিশ্রুতি দেওয়া,

অল্প দিনের মধ্যেই মোহরানা প’রিশোধ ক’রা। স্ত্রী যদি চাকুরি ক’রে তবে টাইম টেবিলটা নিয়ে একটু পরি’ষ্কার ক’রা। চাকুরি না করলে ভবি’ষ্যত প’রিকল্পনার কথা বলা। ১০. এ রাতই হল উত্তম ভালবাসার রাত। দুজনার সব আকুতি মেশানো ভালবাসা দিয়ে দুজনাকে জয় ক’রা। কোন ভাবেই যেন ফজরের নামাজ কাজা না যায় সেদিকে লক্ষ্য রাখা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *