বলিউডে জায়গা পোক্ত করতে সাজিদের সঙ্গে লিভ টুগেদার, পরে ঝুঁকলেন সালমানে

জ্যাকলিন ফারন্যান্ডিজ এবং সাজিদ খানের প্রে’মকাহিনী ওপেন সিক্রেট। জনসমক্ষে এ কথা স্বীকার না করলেও তাঁদের স’ম্পর্ক কারও কাছে অজানা ছিল না।

তাঁদের অসম্পূর্ণ প্রে’মালাপ আজও উঠে আসে চর্চায়। সাজিদ খানের হাত ধরেই বলিউডে নিজের জায়গা করার চেষ্টা করেছিলেন জ্যাকলিন।

হাউজফুল ফ্র্যাঞ্চাইজিতে অ’ভিনয় করার পরই সাজিদের সঙ্গে তাঁর ব্রেকআপের খবর উঠে আসে শিরোনামে। কী’ কারণে হয়েছিল তাঁদের বিচ্ছেদ, সে বিষয়টি খোলসা করে কখনই কিছু বলেননি এই প্রাক্তন সেলেব জুটি।

এমনকি জ্যাকলিন এই স’ম্পর্কটি স্বীকারই করতে চান না। অথচ নেটিজেনের কথায়, জ্যাকলিন এবং সাজিদ সহ’বাস করতেন।

ছবিতে সুযোগ পাওয়ার জন্য নাকি সাজিদের সঙ্গে স’ম্পর্কে জড়িয়েছিলেন জ্যাকি। পরবর্তীকালে স’ম্পর্কে ভাঙন ধরে জ্যাকলিনের কাছে অন্যান্য বড় পরিচালক এবং প্রযোজকদের প্রস্তাব আসার পর।

কারও কথায়, সালমান খানের সঙ্গে অ’ভিনেত্রীর ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে এক বলিউড পার্টিতে। সেই অনুষ্ঠানে শ্রীলঙ্কার সুন্দরীর রূপে মুগ্ধ হয়ে তাঁকে একের পর এক ছবির প্রস্তাব দিতে থাকেন খোদ সালমান।

বিভিন্ন নামী প্রযোজকদের সঙ্গে বৈঠকের ব্যবস্থা করে দেন তিনি। সাধারণ অ’ভিনেত্রীদের তালিকা থেকে হঠাৎই প্রথম সারির অ’ভিনেত্রীদের তালিকায় নাম উঠে এল জ্যাকলিনের।

সালমানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতাই তাঁকে আজ প্রথম সারির নায়িকাদের মধ্যে এনেছে। সাজিদের সঙ্গে বলিউড নায়িকারা রাত কা’টাতে বাধ্য হন ছবিতে কাজ পাওয়ার আশায়।

এই কথা প্রথম বলেন মডেল তথা বিগ বস প্রতিযোগী ডায়েন্ড্রা সোরেস। ২০১৮ সালে মি টু আ’ন্দোলন চলাকালীন তাঁকে সাজিদ খানের উপর একাধিক যৌ’ন হে’নস্তার অ’ভিযোগের আঙুল ওঠে।

সেই সময় এ কথা বলেছিলেন ডায়েন্ড্রা। ফারহা খানের বাড়িতে এক অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন তিনি। সেই সময় সেখানে সাজিদ খানও উপস্থিত ছিলেন।

ডায়েন্ড্রার কথা, মহিলাদের সঙ্গে অশ্লীল আচরণ করার জন্য সাজিদের দুর্নাম রয়েছে ইন্ডাস্ট্রিতে। সকলেই জানেন তবে কেউ কোনও প্রতিবাদ করেন না।

তবে ডায়েন্ড্রা করেছিলেন। তিনি জানান, এই অরজকতা এবং দুর্ব্যবহার করা ব্যক্তিদের জন্যই কখনই বলিউডে কাজ করতে চাননি। অনেক প্রস্তাব আসতেও ফিরিয়ে দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *