আমার একসঙ্গে চার-পাঁচজন পুরুষ দরকার: শ্রীলেখা মিত্র

ওপার বাংলার অ’ভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। অ’ভিনয়ের পাশাপাশি শ’রীরী আবেদনে বাংলার পু’রুষদের কাছে আরাধ্য এক। বিষয়টা তিনি উ’পভোগ করেন বলেই তার শ’রীরী প্র’দর্শনটাও তেমনি খো’লামেলা হয়।

বেশ কিছুদিন আগে এক সা’ক্ষাৎকারে নিজের মানসিক ভা’বনাগুলো একদম ন’গ্ন’ভাবে তুলে ধরেন। সাহসী প্রশ্নের বে’ফাঁস উত্তরের জোরে বেশ ভা’ইরাল হয় শ্রী’লেখার ওই সা’ক্ষাৎকার।

শ্রীলেখা মিত্রকে নিয়ে একটা বয়’সের পু’রুষ স্বপ্ন দেখে এমন একটি প্রশ্ন তিনি সং’শোধন করে, উত্তরে বলে, একটা বয়স? ভুল বলছেন। একটা ব’য়সের নয়। বিভিন্ন বয়সের পু’রুষ আ’মাকে নিয়ে দিন-রাত স্বপ্ন দেখে। এটা কিন্তু বেশ ভা’লোই লাগে।

ভালো লাগার প্রা’সঙ্গিক ব্যাখা দিয়ে শ্রীলেখা ব’লেছিলেন, যারা এখন ৩০-এর কোঠায় তেমন অনেকে বলে’ছেন, তাদের বেড়ে ওঠা, সেক্সুয়ালি নিজেকে জানা, আর তার মা’ধ্যম হলাম আমি। এটা আমার কাছে একটা বিরাট ক’মপ্লিমেন্ট।

কা’উকে কাউকে হয়তো আমি ‘সেক্সাইট’ করি। আর দর্শক যদি রাতে আমার স্বপ্ন না দেখেন, তাহলে তো অভিনেত্রী হিসেবে সেটা আ’মার ফেলিওর।
একাকী জীবনে পুরুষের চাহিদা আছে কিনা, এই প্রশ্নের তিনি দি’য়েছিলেন বিস্ফোরক উত্তর। এই নারী জানালেন, আমার তো একসঙ্গে চার-পাঁচ জন পুরুষ দরকার। যারা আমা’র বি’ভিন্ন কাজ করে দেবে।

একজন ফা’ইনান্স দেখবে। একজন কোথায় কোথায় ইনভেস্ট করব সে সব বলে দেবে। আর একজন রোমান্টিক হবে। যে মাঝে মাঝে দু’কলি গান গেয়ে দেবে। কবিতা পড়ে দেবে। আর একজন বা’জারটা করে দেবে।

আসলে একজন পু’রুষের মধ্যে তো সব গুণাবলী থাকে না। তাই ছড়িয়ে দাও ভালবাসা। শ্রীলেখার এই উত্তরেই খোলাসা হয় এক সম্পর্কের বাঁ’ধায় ধরা দিতে চাননা ৪৫ বছর বয়সী এই নারী।

তিনি আরও বলেন, আ’মার খিদে পেলে খাব, ঘুম পেলে ঘুমবো। আবার শ’রীরী চা’হিদা থাকলে সেটা পূরণ করব। তার জন্য প্রেম করতে হবে, এটার কোনো মানে নেই। কিন্তু সত্যিই আমার কেউ নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *