যাদের বুকে লোম বেশি থাকে তারা মানুষ হিসেবে কেমন হয় জানেন? রইল জানার উপায়

ভারতীয় জ্যোতিষের অতি প্রাচীন শাখা সামুদ্রিক শাস্ত্র। দেহ লক্ষন থেকে ভবিতব্য নির্ণয়ে এই শাস্ত্র আবার কতগুলি উপশাখায় বিভক্ত। হস্ত, কপাল বা সমগ্র অয়বয়ের বিচার যেমন এই শাস্ত্রের বিভিন্ন দিক করে থাকে, তেমনই মুখমণ্ডলের বিষয়েও আলাদা গুরুত্ব দেয় এই শাস্ত্রের একটি বিশেষ শাখা।

অর্থাৎ সামুদ্রিক শাস্ত্র দ্বারা মানুষের শরীর পর্যবেক্ষণ করে মানুষের চরিত্র বিচার করা হয়।প্রাচীন সামুদ্র শাস্ত্র মনে করে শরীরের বিশেষ কিছু লক্ষন বিশ্লেষণ করে

মানুষের অতিত বর্তমান ভবিষ্যৎ জানা সম্ভব। তাই আজ আমরা সামুদ্রিক শাস্ত্র অনুযায়ী দেহ গঠন থেকে চরিত্র জানার উপায় সম্পর্কে বলব।দাঁতের উপর দাঁত ঃ- যেসব মানুষের দাঁতের উপর দাঁত থাকে তারা খুবই ভাগ্যবান হয়ে থাকেন। এমন মানুষ খুবই বুদ্ধিমান, সৃজনশীল, কলা বিদ্যায় পারদর্শী হয়ে থাকেন। তবে এরা খুবই বিলাসিতা প্রিয়। যাদের দাঁত সমান মাপের, দাঁতের মধ্যে কোন ফাঁক নেই, তাদের অর্থ ভাগ্য অসামান্য।

এরা জীবনে কখনোই অর্থ কষ্টে পান না। যাদের দাঁতের রং ঈষৎ হলদেটে, কিন্তু সাদা ভাবই বেশি, তাদের অর্থ ভাগ্য দারুন। অপরদিকে ঝকঝকে সাদা দাঁতের অধিকারীদের অর্থ ভাগ্য একেবারেই ভালো নয়।মেয়েদের ঠোঁটের উপর লোম ঃ- প্রাকিতিক ভাবেই অনেক মেয়ের ঠোঁটের ওপর লোম থাকে। সামুদ্রিক শাস্ত্র মতে যেসব মেয়েদের ঠোঁটের ওপর লোম থাকে তারা অনেক রাগি হয়ে থাকেন।

এরা স্বামীর ওপর কৃতিত্ব চালাতে ভালোবাসেন।শরীরে অধিক লোম ঃ- যাদের শরীরে জম্ন থেকেই অধিক লোম থাকে তারা কাম বাসনা, ভোগ বিলাসকেই অধিক মাহত্ম দিয়ে থাকেন। এরা যেমন খেতে ভালোবাসেন তেমনই খুব পরিশ্রমও করতে পারেন। নিত্য নতুন কাজ করতে এদের জুরি মেলা ভার।যেসম মানুষের বুকের মধ্যে অধিক লোম থাকে, তারা অল্পতেই সন্তুষ্ট হয়ে থাকেন। এরা বুদ্ধি ও শক্তিতে বেশ এগিয়ে থাকেন। আর্থিকভাবেও স্বচ্ছন্দে থাকেন এরা।

এদের দাম্পত্য জীবন হয় মধুর। যাদের বুকের মধ্যে কোন লোম নেই তারা বেসরম ও স্বার্থপর হয়ে থাকেন। এমন মানুষরা বিশ্বাসের যোগ্য হন না। এরা জীবনে একাধিক প্রেম করে থাকেন ও এরা মেয়েদের ধোঁকা দিতে পারদর্শী হন.হাতে ছয়টি আঙুল ঃ- এমন অনেক মানুষ আছেন যাদের হাতে ছয়টি আঙুল রয়েছে। সামুদ্রিক শাস্ত্র মতে যেসব মানুষের হাতে ছয়টি আঙুল রয়েছে তাদের ভাগ্য খুবই ভালো হয়। সম্পদের ওপর এরা প্রভাব ফেলতে পারেন।

এদের দেহ সৌন্দর্য দেখার মতন। উরু চিকন ঃ- যাদের উরু চিকন হয় তারা খুবই শান্ত স্বভাবের হয়ে থাকেন। এরা দয়ালু, ক্ষমতাবান ও সাহসী হন। এরা যেমন পরামর্শ শোনেন, তেমনই অন্যকে পরামর্শ দিতে পছন্দ করেন। এরা খুবই চালাক প্রকৃতির হয়ে থাকেন। ফলে এদের ঠকানো খুবই কঠিন।নাকের ছিদ্র ঃ- নাকের ছিদ্র ছোট বা বড় হওয়া মানুষের ওপর অনেক প্রভাব ফেলে। যাদের নাকের ছিদ্র ছোট হয় তাদের মনও ছোট হয়ে থাকে। এমন মানুষ কখনও কারুর প্রিয় হন না। আর যাদের নাকের ছিদ্র বড় বা লম্বা হয় তারা খুবই দূরদর্শী ও কর্মঠ হয়ে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *