লেবুকে ফ্রিজে জমিয়ে বরফ বানিয়ে তারপর সেটি খান, পাবেন আশ্চর্যজনক ফলাফল

বরফ বানিয়ে তারপর- লেবু সাধারণত সারা বিশ্বেই খুব জনপ্রিয় এবং সব রান্নাঘরেই এটা একটা অপরিহার্য খাবার। লেবু সবসময়ই ফ্রিজেতে মজুত রাখা হয়। আপনি অম্বলে ভুগলে লেবু আপনাকে তা থেকে মুক্তি দিতে পারে।শুধু তাই নয় লেবুর আরও অনেক উপকারিতা আছে। বিশেষ করে হিমশীতল লেবু!

লেবুর উপকারিতা জানার পরে এখন অনেক রেস্টুয়ারেন্টেও এর ব্যবহার বেড়েছে। এখানে আপনি দেখুন একটা লেবুর কোন অংশ বাদ না দিয়ে পুরো লেবুটাকে কি ভাবে ব্যবহার করা যায়। খুবই সোজা লেবুটিকে ফ্রিজের বরফ তৈরির জায়গায় রাখুন।

তারপর লেবুটি জমে বরফ হয়ে গেলে সেটিকে ছাড়িয়ে কেটে ফেলুন। এরপর এটাকে আপনি যে কোন খাবারের ওপর ছড়িয়ে দিন এবং যে কোন খাবারের স্বাদ অনেক গুণ বাড়িয়ে তুলুন।নিচে ঠাণ্ডা লেবুর গুণগুলি দেখুন!

হিমশীতল লেবুঃ লেবুর রসের থেকে লেবুর খোসায় ৫ থেকে ১০ গুণ বেশি ভিটামিন থাকে। আর হ্যাঁ, আপনি সেটা অপচয় করেন। কিন্তু এখন যদি আপনি প্রথমে লেবুটিকে ফ্রিজে ঠাণ্ডা বরফ করে তারপর সেটাকে গ্রেট করে খাবারের ওপর ছড়িয়ে দিলে আপনি লেবুর সমস্ত গুণগুলি পাবেন!

লেবুর রহস্যঃ লেবুর খোসা আপনার স্বাস্থ্যর জন্য ভাল পুনরুজ্জীবকের কাজ করে এবং আপনার শরীরের ভিতর থেকে ক্ষতিকারক পদার্থগুলি বার করে দেয়। তাই আপনি রোজ লেবুকে ফ্রিজে রাখুন আর বের করে কেটে নিজের খাবারের সাথে মিশিয়ে নিন।

দেরি হয়ে গেলেও নতুন করে শুরু করতে তো কোন অসুবিধা নেয়। লেবুর ছিবড়ের ম্যাজিকঃ আপনি লেবুর ছিবড়েটাকে পরে ব্যবহার করবার জন্য আলাদা করে ফ্রিজে রাখতে পারেন। এমনকি লেবুর সাহায্য চিকিৎসা করলে ক্যান্সারের কোষগুলিকে নষ্ট করে দেওয়া যায় এবং তা স্বাস্থ্যর কোন রকম ক্ষতি করে না।

জীবনে নতুন রস যোগ করুনঃ লেবুর ঠাণ্ডা ছিবড়ে আপনার খাবার এবং পানীয়ের স্বাদ কয়েক গুণ বাড়িয়ে তুলতে পারে। এইভাবে আপনি আপনার খাবারে একপ্রকার টাঙ্গি স্বাদ যোগ করতে পারেন। আর অব্যশয়ই মনে রাখবেন এটা খুবই স্বাস্থ্যকর।

লেবু কেমোর থেকে অনেক ভাল…ঃ লেবু খুব কার্যকরভাবে ক্যান্সারের কোষগুলোকে ধবংস করে দিতে পারে, কারণ এটা কেমোথেরাপির থেকে ১০০০০ গুণ বেশি শক্তিশালী। লেবুর আর একটা গুরুত্বপূর্ণ দিক হল এটা সিস্ট আর টিউমারের খেত্রেও খুব কার্যকারী।

আরোও রোগ প্রতিরোধী ক্ষমতাঃ লেবুর মত সিটরাস প্রজাতির ফলে লিমনয়েডস থাকে যা স্তন ক্যান্সারকে প্রতিরোধ করে। একটা গবেষণা দেখাচ্ছে যে লেবুর কোলন, স্তন, প্রোস্টেট, অগ্নাশয়, ফুসফুস সমেত ১২ রকমের ক্যান্সার কোষ ধবংস করার ক্ষমতা আছে।

লেবুর উপকারিতাঃ এখানেই শেষ নয়, লেবু ব্যাকটেরিয়া ইনফেকশ্যান এবং ছত্রাকের বিরুদ্ধেও খুব ভাল কাজ করে, বিভিন্ন পরজীবী এবং কৃমির ক্ষেত্রেও খুব কার্যকরী। উচ্চ রক্তচাপও নিয়ন্ত্রণ করে, বিষণ্ণতার বিরুদ্ধে খুব ভাল কাজ করে, পারকিন্সন এর মত অসুখেও খুব ভাল কাজ করে, পেটের সমস্যা ঠিক করে।

লেবুর মধ্যে থাকা সাইট্রিক অ্যাসিড গলব্লাডারে স্টোন, কিডনি স্টোনকে গলিয়ে দেয়। আপনি নিশ্চয়ই এখন আর হিমশীতল লেবুকে মানা করবেন না এবং তার উপকারিতা গুলিকে গ্রহণ করবেন!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *