স্বর্নের বাজারে রেকর্ড দরপতন (মূল্য তালিকা সহ)

বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রভাব স্বর্ণের বাজারেও পড়েছে। স্বর্ণের দাম ভরিতে ১ হাজার ১৬৬ টাকা কমেছে। বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতি (বাজুস) এ সিদ্ধান্ত নেয়। এর ফলে ২২ ক্যারেটের (সবচেয়ে ভালো মানের) প্রতিভরি স্বর্ণের
দাম দাঁড়িয়েছে ৬০ হাজার ৩৬১ টাকা।

আজ থেকে নতুন এই দাম কার্যকর হবে। বাজুসের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ সব তথ্য জানানো হয়। এ দিকে আন্তর্জাতিক বাজারে (দুবাই) মঙ্গলবার প্রতি গ্রাম স্বর্ণের দাম ছিল ৪৬ দশমিক ২২ ডলার।

এ হিসাবে স্থানীয় মুদ্রায় প্রতিভরির দাম পড়ে (প্রতি ডলার ৮৫ টাকা হিসাবে) ৪৫ হাজার ৮২৪ টাকা। ফলে দুবাইয়ের সঙ্গে বাংলাদেশি বাজারে ভরিতে পার্থক্য প্রায় ১৫ হাজার টাকা। অর্থাৎ স্বর্ণের বাজারে বিশৃংখলা চলছে। নতুন মূল্য অনুযায়ী,

২২ ক্যারেটের প্রতিভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) স্বর্ণের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৬০ হাজার ৩৬১ টাকা। বুধবার এর দাম ছিল ৬১ হাজার ৫২৭ টাকা। এ হিসাবে ভরিতে দাম কমেছে ১ হাজার ১৬৬ টাকা। এ ছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতিভরি ৫৯ হাজার ১৯৪ টাকা থেকে কমে ৫৮ হাজার ২৮ টাকায় বিক্রি হবে।

এ হিসাবে ভরিতে দাম কমেছে ১ হাজার ১৬৬ টাকা। ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ প্রতিভরি ৫৪ হাজার ১৭৯ টাকা থেকে কমে ৫৩ হাজার ১২ টাকায় বিক্রি হবে। ফলে ভরিতে দাম কমেছে ১ হাজার ১৬৬ টাকা। একই হারে কমে সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণ প্রতিভরি ৪০ হাজার ২৪০ টাকায় বিক্রি হবে।

অন্যদিকে রূপার দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। প্রতিভরি রূপা ৯৩৩ টাকায় বিক্রি হবে। তবে একজন ক্রেতা কোনো জুয়েলারির দোকান থেকে স্বর্ণের অলংকার কিনতে চাইলে তাকে ৫ শতাংশ হারে ভ্যাট দিতে হয়। এরপর ভরিতে প্রায় ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত মজুরি দিতে হয়।

স্বা’মী দেশে ফে’রার খবরে ব’ড়ি খেয়ে স্ত্রীর,কান্ড ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গ,রু মোটা-তাজাকরণ বড়ি খেয়ে জ,নু আক্তার (২২) নামে এক গৃ,হবধূর মৃ,ত্যু ঘটেছে। তার লা,শ উ,দ্ধার করে ম,য়নাতদন্তের জন্য ম,য়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হা,সপাতাল মর্গে প্রে,রণ করেছে পাগলা থা,না পু,লিশ। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার পূর্ব গোলাবাড়ি গ্রামের এ ঘটনায় পা,গলা থা,নায় একটি অ,পমৃত্যু

মা,মলা দা,য়ের করা হয়।স্থানীয় ও থা,না সূত্রে জানা যায়, উপজেলার লং,গাইর ইউনিয়নের পূর্ব গো,লাবাড়ি গ্রা,মের প্রবাসী শাকিল মিয়ার স্ত্রী জ,নু আক্তার শা,শুড়ির সাথে ব,সবাস করতেন।শাকিল মি,য়া বি,দেশে থাকা অবস্থায় ফে,ইজবুকের মাধ্যমে নরসিংদী জেলার শিবপুর থা,নার সা,দার চর গ্রামের আলী হোসেনের মে,য়ে জনু আক্তারের

সাথে ব,ন্ধুত্ব ও মন দেয়া-নেয়া হয়। এরই সূত্র ধরে ৭-৮ মাস আগে মো,বাইলে শা,কিল মিয়ার সাথে জ,নু আ,ক্তারের বি,য়ে হয়। পরে শাকিল মিয়ার পরামর্শে জনু আক্তার গফরগাঁওয়ে এসে শাশুড়ির সঙ্গে বসবাস শুরু করেন। বিয়ের সময় জনু আক্তারের স্বা,স্থ্য খু,বই কম ছিল। শা,কিল মিয়া দেশে ফিরে স্ত্রী,কে এতটা স্বা,স্থ্যহীন দেখে প,ছন্দ

নাও করতে পারেন- এ আ,শঙ্কায় তিনি দী,র্ঘদিন ধরে স্বাস্থ্য বৃ,দ্ধির জন্য গরু মোটা-তা,জাকরণ বড়ি খেয়ে আসছিলেন। গত বৃ,হস্পতিবার রা,তে খাওয়া-দাওয়া শে,ষে ট্যা,বলেট খেয়ে ঘুমিয়ে পরেন জ,নু আক্তার। পরে ঘুমের মধ্যেই তিনি মা,রা যান।স্থা,নীয় লো,কজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে পা,গলা থা,নার অফিসার ইনচার্জ শা,হিনুজ্জামান

খানের নেতৃত্বে পু,লিশ মৃ,তের লা,শ উ,দ্ধার করে ম,য়নাতদন্তের জন্য ম,য়মনসিংহ মে,ডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ম,র্গে প্রে,রণ করে।পা,গলা থা,নার ও,সি শা,হিনুজ্জামান খা,ন বলেন, লা,শ উ,দ্ধারের সময় ঘরে গ,রু মোটা-তাজাকরণ ট্যা,বলেটের খালি প্যা,কেট পাওয়া গেছে। ধারণা করছি গৃ,হবধু স্বাস্থ্য বৃদ্ধির জন্য এই ট্যাবলেট খেতেন। ঘু,মের মধ্যেই মারা গেছেন তিনি। লাশ ম,র্গে প্রে,রণ করা হয়েছে। ম,য়নাতদন্ত রি,পোর্ট এলেই স,ত্যটা জানা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *