যেখানে বিক্রি হচ্ছে উকুন, প্রতি উকুনের মূল্য ৩০০টাকা

মাথায় যাতে কোনো ভাবেই উকুন না হয় এর জন্য সবার চেষ্টার কমতি থাকে না। উকুন তাড়াতে বিভিন্ন রকমের দামী প্রসাধনী ব্যবহার করেন অনেকেই। কিন্তু অবাক করা বিষয় হলো, এমন এক দেশ রয়েছে যেখানে মাথায় উকুন পোষা হয় এবং তা বিক্রি করা হয়।

দুবাইতে অধিক হারে বিক্রি হয় এই উকুন। তাও যেমন তেমন মূল্যে নয়। এক উকুনের মূল্য ১৪ দেরহাম। বাংলাদেশি টাকায় যার মূল্য ৩০০ টাকা। গবেষণায় দেখা গেছে, মাথার উকুন চুল ও শরীর স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারি। এতে চুল পড়ার সম্ভাবনা কম থাকে। চুল মজবুত থাকে এবং শরীর স্বাস্থ্যবান রাখে।এ খবর ছড়াতেই দুবাইতে উকুনের কদর বেড়ে গেছে। নারীরাও তাদের মাথায় উকুনের যত্ন নিচ্ছেন উকুন বাড়াচ্ছেন। বলা যায় মাথায় উকুন পালন শুরু করেছেন।

আরো জানা যায়, উকুনের চাহিদা বাড়ায় দুবাইয়ের সেলুনগুলো উকুন বিক্রি শুরু করেছেন। যাদের মাথায় বেশি উকুন সেগুলো কিনে বিক্রি করছেন অন্য নারীদের কাছে।

তবে উকুন বিক্রির এই খবর জানাজানি হওয়ার পর দুবাইয়ের হেলথ কন্ট্রোল সেকশন বলেছেন, উকুন বিক্রির সিদ্ধান্তটি অন্যায়। যাকে এ কাজে পাওয়া যাবে তাকে জরিমানা করা হবে।

ওষুধ না খেয়েও ঘরোয়া উপায়ে খুব সহজে আঁচিল দূর করুন

অনেকেই আঁচিল নিয়ে খুবই সমস্যায় রয়েছেন। ডাক্তার কাছে গিয়েও বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ত্বকের এই উপবৃদ্ধি থেকে নিস্তার মেলে না। এবার জেনে নিন টাকা খরচ না করে ওষুধ না খেয়েও ঘরোয়া জিনিস দিয়ে এর আঁচিল দূর করার উপায়।

অ্যাপল সিডার ভিনিগার : ভিনিগারে ভেজানো তুলা আঁচিলের উপর রেখে দিন সারা রাত। পাঁচ দিন করুন। অ্যাপল সিডার ভিনিগারে প্রচুর অ্যাসিড রয়েছে। এই অ্যাসিড প্রাকৃতিকভাবে আঁচিল পুড়িয়ে দেয়। ফলে আঁচিল বৃদ্ধি রদ হয়।

অ্যালভেরা : একটা অ্যালভেরা পাতা কেটে নিন। ভিতরের থকথকে জেলিটা ওই জায়গায় লাগিয়ে দিন। কয়েকদিন করলেই আঁচিল শুকিয়ে যাবে। নিজে থেকে ঝরেও যাবে। অ্যালোভেরার মধ্যে উপস্থিত ম্যালিক অ্যাসিড এই ম্যাজিক করে দেখাবে।

বেকিং পাউডার : ক্যাস্টর অয়েল এবং বেকিং পাউডারের একটি মিশ্রণ তৈরি করে ফেলুন। মিশ্রণটা আঁচিলের উপর ভালো করে লাগিয়ে বেঁধে রাখুন জায়গাটা। সারারাত এইভাবে ফেলে রাখুন। দু-তিন দিন পর থেকেই ফল পেতে শুরু করবেন। ক্রমশ আঁচিল অদৃশ্য হয়ে যাবে।

রসুন : ত্বকের যত্নে রসুন খুবই উপকারি। অ্যালিসিন রয়েছে রসুনে। অ্যালিসিন অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল। রসুন ছেচে ওই জায়গায় লাগালে উপকার হবে।কলার খোসা : প্রতিদিন কলার খোসা আঁচিলের উপর ঘঁষলে আঁচিল দূর হবে।

অনেকেই আঁচিল নিয়ে খুবই সমস্যায় রয়েছেন। ডাক্তার কাছে গিয়েও বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ত্বকের এই উপবৃদ্ধি থেকে নিস্তার মেলে না। এবার জেনে নিন টাকা খরচ না করে ওষুধ না খেয়েও ঘরোয়া জিনিস দিয়ে এর আঁচিল দূর করার উপায়।অ্যাপল সিডার ভিনিগার : ভিনিগারে ভেজানো তুলা আঁচিলের উপর রেখে দিন সারা রাত। পাঁচ দিন করুন। অ্যাপল সিডার ভিনিগারে প্রচুর অ্যাসিড রয়েছে। এই অ্যাসিড প্রাকৃতিকভাবে আঁচিল পুড়িয়ে দেয়। ফলে আঁচিল বৃদ্ধি রদ হয়।

অ্যালভেরা : একটা অ্যালভেরা পাতা কে’টে নিন। ভিতরের থকথকে জেলিটা ওই জায়গায় লাগিয়ে দিন। কয়েকদিন করলেই আঁচিল শুকিয়ে যাবে। নিজে থেকে ঝরেও যাবে। অ্যালোভেরার মধ্যে উপস্থিত ম্যালিক অ্যাসিড এই ম্যাজিক করে দেখাবে।বেকিং পাউডার : ক্যাস্টর অয়েল এবং বেকিং পাউডারের একটি মিশ্রণ তৈরি করে ফেলুন। মিশ্রণটা আঁচিলের উপর ভালো করে লাগিয়ে বেঁধে রাখুন জায়গাটা। সারারাত এইভাবে ফেলে রাখুন। দু-তিন দিন পর থেকেই ফল পেতে শুরু করবেন। ক্রমশ আঁচিল অদৃশ্য হয়ে যাবে।

রসুন : ত্বকের যত্নে রসুন খুবই উপকারি। অ্যালিসিন রয়েছে রসুনে। অ্যালিসিন অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল। রসুন ছেচে ওই জায়গায় লাগালে উপকার হবে।কলার খোসা : প্রতিদিন কলার খোসা আঁচিলের উপর ঘঁষলে আঁচিল দূর হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *