কানের মধ্যে এক টুকরা রসুন সারারাত রেখে দিন আর সকালে নিজেই ফলাফল বুঝতে পারবেন

কানের মধ্যে এক টুকরা রসুন সারারাত রেখে দিন আর সকালে নিজেই ফলাফল বুঝতে পারবেন – একটি রসুনের টুকরো সারারাত কানের মধ্যে ঢুকিয়ে রাখু’ন, আর সকালে উঠে দেখু’ন তার চ’মৎকার ফলাফল! রসুনের টুকরো সারা রাত

রসুনের টুকরো সারা রাত- রসুন ছাড়া ভা’রতীয় রান্না অসম্পূর্ণ। সুগন্ধযু’ক্ত গন্ধ এবং স্বাদ ছাড়াও রসুন শরীরের গরম, রোগপ্রতিরোধ এবং সংক্রমণ নিরাময়ের জন্য প্রমাণিত হয়েছে !এখানে রসুনের কিছু অ’প্রত্যাশিত স্বাস্থ্য এবং সৌন্দর্যে ব্যবহারের গুন এনেছি !

চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক –

১। চুল ঝড়ে পড়ার হাত থেকে বাঁ’চায়: এক কোয়া রসুনের টুকরো কে’টে মা’থার তালুতে ঘোসুন। রসুনে থাকা প্রাকৃতিক তেল চুল পড়ার হাত থেকে রক্ষা করে এবং চুলের গোড়া মজবুত করে ।

২। রসুনের চা ঠান্ডা লাগা এবং সর্দি থেকে বাঁ’চায়: রসুন চা সবচেয়ে সুস্বাদু চা হয়। রসুন চা তৈরি করতে দুটো রসুনের কোয়ার সাথে লবঙ্গ ফুটন্ত জলে দিন, আপনার স্বাদ অনুযায়ী আদা ও মধু যোগ করুন। আপনি ১০ মিনিটের মধ্যেই ভাল বোধ করবেন ।

৩। রসুন ত্বকের ফুসকুরি দূর করতে সাহায্য করে: কিছু রসুনের তেল ফুসকুরি ওলা ত্বকে লাগান এবং চক্রাকারে ম্যাসাজ করুন। এটি অস্বস্তি থেকে মুক্ত এবং ঐ এলাকাটি মসৃণ করে এবং ফুসকুরি মুক্ত করে তুলবে।

৪। রসুন কানের ব্যাথা দূর করে: কানের ব্যাথা খুবই ক’ষ্ট’কর। একটি রসুনের কোয়া কানে দিয়ে রাখু’ন সারা রাত আর দেখু’ন পরের দিন কেমন তা’জা অনুভব করবেন যা আগে কখনও করেননি ।

৫। ডাইবেটিসের সাথে যু’দ্ধ করতে সাহায্য করে রসুন: রসুন শরীরে উচ্চ ইনসুলিনের উৎপাদন কম করে। আর শরীরে অধিক গ্লুকোজের মাত্রা কমায়। একজন ডাইবেটিক রোগীর রোজ রসুন খাওয়া দরকার, চা বা রান্নার মধ্যে দিয়ে ।

৬। রসুন র’ক্ত চাপ কমায়: যদি হাইপারটেনশান রোগী দৈনিক ২-৩ টে করে রসুন চেবায়, তবে তাদের র’ক্তচাপের মাত্রা স্বাভাবিক পর্যায়ে নেমে যায়

৭। গাঁঠের ব্যথা থেকে মুক্তি দেয় রসুন: যেখানেই ব্যথা হয়, সহ’জেই রসুনের তেল দিয়ে ম্যাসাজ করুন এবং ব্যথা এবং অস্বস্তি থেকে নিজেকে মুক্ত করুন। প্রতিদিন এটি ব্যবহার করলে অস্টিওপরোসিস, অস্টিওমালিয়া এবং আর্থ্রাইটিসের এর মত রোগের ব্যথাও কমাতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *